ঢাকা কলেজ নিউ মার্কেট সংঘর্ষের ঘটনায় ৩ মামলায় ৭০০ আসামী

ঢাকা কলেজ নিউ মার্কেট সংঘর্ষের ঘটনা


রাজধানী ঢাকা মহানগরীর ঐতিহ্যবাহী ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের সাথে নিউ মার্কেটের ব্যবসায়ীদের সংঘর্ষের ঘটনায় ৩টি মামলা দায়ের হয়েছে। এর মাঝে দাঙ্গা-হাঙ্গামা, অগ্নিসংযোগ, জ্বালাওপোড়াও, পুলিশের কাজে বাধা দেয়া ও বিস্ফোরণের ঘটনায় দুটি মামলা দায়ের করেছেন ডিএমপির নিউ মার্কেট থানার পুলিশ উপ-পরিদর্শক (এসআই) মেহেদী হাসান ও পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ইয়ামিন কবির। আর সংঘর্ষের ঘটনায় নিহত ডি-লিংক কুরিয়ার সার্ভিসের ডেলিভারিম্যান নাহিদ মিয়ার মৃত্যুর ঘটনায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন নিহতের চাচা মো. সাঈদ। এই তিনটি মামলায় ৭০০ জনকে আসামী করে এজহার দাখিল করা হয়েছে।

নিউ মার্কেট থানার উপ-পরিদর্শক শাহ আলম গণমাধ্যমকে বলেন, গতকাল ১৯ এপ্রিল বুধবার রাতে ৩টি মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। এসব মামলায় বেনামী ৭০০জনকে আসামী করা হয়েছে। মামলাগুলোর সব আসামীই অজ্ঞাত। এসআই মেহেদী হাসানের দায়েরকৃত মামলায় ১৫৫-২০০ জনকে আসামী করা হয়েছে। পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ইয়ামিন কবিরের মামলায় ২০০-৩০০ জনের নামে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এবং নাহিদ হত্যার ঘটনায় ১৫০-২০০ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

গত সোমবার ১৭ এপ্রিল মধ্যরাত অবধি নিউ মার্কেটের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের সংঘর্ষ হয়েছে। পরদিন মঙ্গলবার সকাল থেকে দুপুর অবধি দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় প্রায় দুই শতাধিক আহত ও দুজন নিহত হয়েছে।

জানা যায়, ১৭ এপ্রিল সন্ধ্যায় ঢাকা নিউ মার্কেট এর ৪ নং গেটের দুই ইফতার সামগ্রী বিক্রয়কারী প্রতিষ্ঠানের কর্মচারীদের মধ্যে হাতাহাতি হলে এ পর্যায়ে একজনের পক্ষে ঢাকা কলেজের কয়েকজন শিক্ষার্থী এগিয়ে গেলে সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়।

 

সেনাবাহিনী না থাকলে পাকিস্তান থাকবে না

পাকিস্তানের সেনা বাহিনী না থাকলে পাকিস্তানও থাকবে না বলে মন্তব্য করেছেন সদ্য ক্ষমতাচ্যুত পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ইমরান খান তাঁর সমর্থকদের উদ্দেশ্য করে বলেন, সেনা বাহিনী না থাকলে পাকিস্তান ভেঙ্গে ৩ টুকরো হয়ে যাবে। রাজনৈতিক আন্দোলনে যেন সেনা বাহিনীর বিরুদ্ধে কোনো স্লোগান না দেয়া হয়। ইমরান খানের চাইতে সেনা বাহিনী পাকিস্তানের অধিক প্রয়োজন। গতকাল ২০ এপ্রিল বুধবার রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লাইভ ভিডিও বার্তায় ইমরান খান এসব কথা বলেছেন। এসময় ইমরান খান আরো বলেন, তিনি এখন সংবাদ পত্র পড়ার সময় পান না, টেলিভিশন দেখা সময় পান না। ফেসবুক টুইটার এর ফিডের খবরের উপরই চোখ বুলাতে হয় যেকোনো আপডেটের জন্য। সেনা বাহিনী নিয়ে বিভিন্ন মিম ও ট্রলের বিষয়ে প্রশ্ন তুলেন ইমরান খান।

সদ্য ক্ষমতাচ্যুত পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেন, শত্রুরা পাকিস্তান সেনা বাহিনীকে আক্রমন করছে, টার্গেট করছে। নওয়াজ ও আসিফ আলি জারদারির সরকারের সময় সেনা বাহিনীকে অবমূল্যায়ন করা হয়েছে। নওয়াজ শরীফ যখন বিদেশ ছিলেন তখন তিনি সেনা প্রধানকে টার্গেট করে অনেক মন্তব্য করেছেন। বিষয়টি সেনাবাহিনী এবং দেশের জনগণ সবাই জানেন। সেনা বাহিনী না থাকলে এই মূহূর্তে পাকিস্তান ভেঙে ৩ টুকরো হয়ে যাবে। দেশের যুব সমাজ যদি বিদেশি ষড়যন্ত্র মেনে নেয় তবে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম বিদেশের ভিসা খুঁজবে। আর যদি এই সরকারের মতো দূর্নীতিবাজরা সরকার চালায় তবে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য কোনো কিছুই অবশিষ্ট থাকবে না।

সূত্র: Dawn ও যুগান্তর 


আরও পড়ুন- বাংলাদেশের ঐতিহাসিক নিদর্শনসমূহ

Next Post Previous Post